১০ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ২৪শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২১শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি



অদক্ষ চালকদের হাতে আবর্জনাবাহী গাড়ি

কুশিয়ারা ভিউ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২১

একদিনের ব্যবধানে রাজধানীতে আবারো সিটি করপোরেশনের আবর্জনাবাহী গাড়ির ধাক্কায় প্রাণহানির ঘটনা  ঘটলো।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর পান্থপথে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) গাড়ির চাপায় আহসান কবির খান (৪৫) নামে এক সাবেক সংবাদকর্মী নিহত হন।

অভিযোগ উঠেছে, দুই সিটি করপোরেশনের অদক্ষ চালকদের বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারণেই দিন দিন বাড়ছে এ ধরনের দুর্ঘটনা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পরিচ্ছন্নতাকর্মী, সহকারী বা মেকানিক এমন অনেকেই এখন দুই সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন গাড়ির
চালক। এমনকি নিয়োগ পাওয়া চালকের বদলে অন্যদের দিয়ে গাড়ি চালানোরও অভিযোগ আছে। আবার হালকা যানের লাইসেন্স নিয়ে আবর্জনাবাহী গাড়ির মতো ভারী যানও চালচ্ছেন অনেকে। বছরের পর বছর ধরে প্রকাশ্যেই চলছে এমন অনিয়ম। কিন্তু নেই কোনো প্রতিকার।

সুনির্দিষ্ট কোনো পরিসংখ্যান না থাকলেও ঘটনা বিশ্লেষণে দেখা যায় রাজধানীতে গত ৪ বছরে সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ি চাপায় ৮ জন নিহত হয়েছেন। এর আগে গত বুধবার গুলিস্তান এলাকায় ময়লার গাড়ির চাপায় নিহত হয় নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসান। ওই গাড়ির চালক রাসেল ছিল একজন পরিচ্ছন্নকর্মী (ক্লিনার)। ২৬ বছর বয়সের ওই চালকের স্থায়ী কোনো নিয়োগপত্র ছিল না।

ডিএসসিসির ক্লিনার হিসেবে দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে (মাস্টাররোলে) কাজ করতেন তিনি। তিন বছর আগে মাস্টাররোলে পরিচ্ছন্ন কর্মী হিসেবে নিয়োগ পান। তখন থেকে আবর্জনার গাড়ি চালাতেন। পরবর্তীতে তার চাকরি চলে গেলেও সিটি করপোরেশনের আবর্জনার গাড়ি চালানো বন্ধ করেনি বলে ডিএসসিসি জানায়।

গতকাল মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) আ. আহাদ সাংবাদিকদের বলেন, এই গাড়ির নির্ধারিত চালক হারুনের কাছ থেকে চাবি নিয়ে সায়েদাবাদ থেকে গাড়িটি চালিয়ে আসেন রাসেল।

তিনি বলেন, আমরা গাড়ির কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে ও গ্রেপ্তারকৃত রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পেরেছি গাড়িটির মূলচালক হারুন। ইতোমধ্যে হারুনকে গ্রেপ্তারে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দ্রুতই তাকে আমরা আইনের আওতায় আনব।

তিনি বলেন, রাসেল সিটি করপোরেশনের কেউ না। তবে সে সিটি করপোরেশনের কিছু কাজ করে। রাসেল জানিয়েছে, তার আত্মীয়স্বজন সিটি করপোরেশনে চাকরি করে। সেই সূত্র ধরে সে সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নকর্মী হিসেবে কাজ করত। রাসেল এর আগেও গাড়িটি চলিয়েছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, গাড়ির চাবি রাসেলকে সিটি করপোরেশনের কেউ দেয়নি। হারুনই রাসেলকে চাবি দিয়েছিল। রাসেল ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নিয়োগপ্রাপ্ত ড্রাইভার না, এছাড়া সে ড্রাইভিং লাইসেন্সও দেখাতে পারেনি। এই ঘটনার একদিন পর গতকাল দুপুর আড়াইটার দিকে আবর্জনার গাড়ির চাপায় মারা যান আহসান কবির খান নামে সাবেক এক সংবাদকর্মী। তিনি দীর্ঘদিন প্রথম আলোর পেস্টিং বিভাগে কাজ করেছেন। সাত বছর আগে চাকরি ছেড়ে দিয়ে প্রিন্টিং ব্যবসা করছিলেন। ঘটনার সময় আহসান কবির মোটরসাইকেলে ছিলেন নাকি সড়ক পার হচ্ছিলেন এ বিষয়ে কেউ তথ্য দিতে পারেনি। তবে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরে স্থানীয়রা সিটি করপোরেশনের ওই ময়লার গাড়িটি আটক করলেও চালক পালিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আহসান কবির খান একটি মোটরসাইকেল থেকে নেমে সড়ক অতিক্রম করছিলেন। এসময় বেপরোয়া গতির একট আবর্জনার গাড়ি কারওয়ান বাজার থেকে পান্থপথের দিকে যাওয়ার সময় তাকে চাপা দেয়।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ধানমন্ডি ট্রাফিক জোনের সহকারী কমিশনার জাহিদ আহসান জানান, দুর্ঘটনার পর সাময়িক সময় ওই সড়কটি স্থানীয় লোকজন অবরোধ করে রেখেছিল। পরে স্থানীয় থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

এদিকে আবর্জনার গাড়ির ধাক্কায় নিহত আহসান কবীর খানের বিষয়ে ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ঘাতক চালকের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতোমধ্যে ডিএনসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এস এম শরিফ-উল ইসলামের নেতৃত্বে চার সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া নিহতের পরিবারের কোনো সহযোগিতার প্রয়োজন হলে তা করা হবে।

এর আগে গত বুধবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) আবর্জনাবাহী গাড়ির চাপায় নিহত নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসানের পরিবারের সদস্যদের রাতে সান্ত্বনা দিতে যান ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

এ সময় তিনি বলেন, গাফিলতি, অন্যায় বরদাশত করা হবে না। আমরা জড়িতদের চিহ্নিত করেছি। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা এবং প্রাতিষ্ঠানিক যে ব্যবস্থা আছে সেগুলোও আমরা নেব। সুষ্ঠু বিচার ও সর্বোচ্চ শাস্তি যেন হয়, আমরা সেটিই কামনা করি।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের বলেন, নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসানের অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুর ঘটনায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি ৭ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবে।

তিনি আরো বলেন, কমিটির কার্য পরিধির মধ্যে রয়েছে এ দুর্ঘটনা কীভাবে সংঘটিত হলো তা উত্থাপন ও দোষী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করা। ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা এড়ানো যায়, সেজন্য সুপারিশ করা। ডিএসসিসির সূত্র জানায়, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৫১৩টি গাড়ি আছে। এর মধ্যে অর্ধেক গাড়ির নিবন্ধন নেই। সংস্থাটির নিবন্ধিত চালকের সংখ্যা মাত্র ১৫০ জন। তবে বেশিরভাগ গাড়ি চালানো হয় অদক্ষ চালক দিয়ে। যাদের বেশিরভাগ দৈনিক মজুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া। চালক সংকটের কারণে অদক্ষ ও অপ্রাপ্ত বয়সের পরিচ্ছন্নকর্মী দিয়ে এ সব ময়লার গাড়ি চালানো হয়। তাই বিভিন্ন সময় এই সব চালকের সড়কে বেপরোয়া গতির কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান। তবে এ পর্যন্ত কতগুলো দুর্ঘটনা ঘটেছে এর কোনো পরিসংখ্যান ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কাছে নেই। রাজধানীর রাস্তায় সিটি করপোরেশনের আবর্জনাবাহী গাড়িগুলো দানবের মতো চলাচল করছে। এসব গাড়ির চালকরা বেপরোয়া গাড়ি চালান। অন্য যানবাহনকেও যানবাহনই মনে করেন না তারা।

জানা গেছে, সিটি করপোরেশনের আবর্জনাবাহী গাড়ির ধাক্কায় নিহতের সংখ্যা কোনো সংস্থার কাছে নেই। তবে কয়েক বছরে রাজধানীতে সিটি করপোরেশনের ময়লাবাহী গাড়ি চাপা ও ধাক্কায় বেশ কয়েকজন হতাহত হয়েছেন। রাজধানীতে প্রায়ই সংস্থার গাড়ি চাপায় দুর্ঘটনা ঘটছে। চলতি বছরের ১৬ এপ্রিল রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের একটি ময়লাবাহী গাড়ির ধাক্কায় মোস্তফা (৪০) নামের এক রিকশাচালক নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আহত রিকশা আরোহী হরেন্দ্র দাস (৭০) আহত হয়েছেন। এর আগে ১৭ জানুয়ারি গেন্ডারিয়ার দয়াগঞ্জ মোড়ে ডিএসসিসির ময়লার গাড়ির ধাক্কায় বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) টেলিফোন বিভাগের স্টাফ খালিদ (৫০) নিহত হন।

২০১৯ সালের ৭ ডিসেম্বর মিরপুরে ময়লাবাহী গাড়ির ধাক্কায় আবদুল খালেক হাওলাদার (৬৭) নামে একজন ভ্রাম্যমাণ পান বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। ২০১৮ সালের ২৪ নভেম্বর বংশালে ডিএসসিসির ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নূরজাহান বেগম (২১) এক গৃহবধূ নিহত হন। এ ঘটনায় তার স্বামী মো. আসিফ উল্লাহ আহত হয়েছেন। ২০২১ সালের ২ মে রাজধানীর শাহজাহানপুর টিটিপাড়ায় ময়লার ট্রাক চাপায় স্বপন আহমেদ দিপু (৩৩) নামে এক ব্যাংক কর্মচারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ট্রাকচালাক নূরুল ইসলামকে আটক করা হয়।

জানা গেছে, নিবন্ধিত চালক ছাড়া ডিএসসিসির বাকি গাড়িগুলো চলে অদক্ষ ও অনিবন্ধিত চালক দিয়ে। কখনো কখনো আবার ক্লিনারদেরও দেখা যায় চালকের ভূমিকায়। ফলে সংস্থার গাড়িগুলো দিয়ে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে। ডিএসসিসির ময়লার গাড়ি বেপরোয়া গতিতে চালানোর অভিযোগ বহু পুরনো। বার বার দুর্ঘটনা ঘটালেও প্রতিকারে ব্যবস্থা নেয়নি সংস্থাটি।

এ বিষয়ে বিআরটিএর চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, সড়ক পরিবহন অনুযায়ী সব যানবাহনের রেজিট্রেশন থাকতে হবে। সরকারি হোক বা বেসরকারি হোক। সিটি করপোরেশনের ময়লা গাড়ি যদি নিবন্ধন না থাকে অথবা চালকের লাইসেন্স না থাকে তাহলে অবশ্যই ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জেল-জরিমানা করা হবে।

 






এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ





















© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
themesbazar_brekingnews1*5k