৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১২ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি



কবিদের একাল-সেকাল

বাদল রায় স্বাধীন
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১

কবি মানে বাবরি চুল, কাঁধে চটের ব্যাগ, সংসার সহ অনেক কিছু করতে হবে ত্যাগ।

পাহাড় গুহায় যেতে হবে, বসবে বটের নিচে, হেঁটে হেঁটে পথ চলবে, নয়তো গাড়ির সিটে।

সাগর পাড়ে বসে লিখবে, কেটে যাবে রাত, সিগারেটে ক্ষুধা মিটবে, খাবেনাতো ভাত।

মাঝে মাঝে মদের নেশা, নারী দেহের সাধ, কবির সঙ্গ পেতে নাকি, নারী আঁটবে ফাদ ।

চুলে তাদের জটা ধরবে,গায়ে ঘামের গন্ধ, মাঝে মাঝে প্রকৃতির ঢাক, রাখবে সে বন্ধ।

নইলে হবে ছন্দ পতন, অন্ত্যমিলের অভাব, চুল দাঁড়ি না কাটা, কবির নাকি স্বভাব।

সঙ্গম কালে ভাবে এটি, নকশী কাঁথার ফোঁড়, বউয়ে নাকি উল্টো তাকে, করতে হবে জোড় ।

সন্তানকেও প্রশ্ন করে, তোমার বাবার নাম? কেন তুমি এই বাড়িতে, কি আছেগো কাম?

ছেলে তখন কেঁদে বলে, তুমি আমার বাবা, এটা নাকি কবির স্বভাব, মারহাবা মারহাবা।

যুগটা এখন পাল্টে গেছে, কবির রুমে এসি, গাড়ি কিনে কবিতার, পান্ডুলিপি বেচি।

দেখতে সবাই নাদুস নুদুস, চাকরি করে ভাই, ক্লিন শেভ করে তবু তাদের ছন্দের অভাব নাই ।

ছেলে সন্তান সব চিনে, বউকে শৃঙ্গার করে, খাওয়া দাওয়ায় অরুচি নাই, সেটা শুধু জ্বরে।

কবি সত্যি মানুষরে ভাই, দেবতাতো নয়, তবে তাহার সৃষ্টিটা হয়, অমর ও অক্ষয়।

কুশিয়ারাভিউ২৪ডটকম/২৮ জুলাই,২০২১/বাদল






এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ





















© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
themesbazar_brekingnews1*5k