২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি



তিন বছরেও হয়নি ভাঙা কালভার্ট সংস্কার

কুশিয়ারা ভিউ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৫ জুলাই, ২০২১

এলজিইডির শৈলকুপা-মাধবপুর আঞ্চলিক সড়ক। এ সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন ১০ গ্রামের মানুষের যাতায়াত শৈলকুপা শহরে ও জেলা শহরে।

কৃষিপণ্য নিয়ে বাজারে অথবা মাঠে। অথচ ৩ বছরেরও বেশি সময় জনগুরুত্বপূর্ণ এ আঞ্চলিক সড়কটির সীমান্ত বাজার এলাকার কালভার্টটির একটি অংশ ভেঙে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটলেও সংস্কার ও সতর্কতামূলক কোনো ব্যবস্থা গ্রহণে টনক নড়েনি ঝিনাইদহের শৈলকুপার এলজিইডি কর্মকর্তাদের।

দামুকদিয়া গ্রামের মজনু মোল্যা জানান, এলজিইডির শৈলকুপা মাধবপুর সড়কটি দিয়ে নাগিরহাট, মাধবপুর, বিষ্ণুদিয়া, লক্ষীপুর, চর লক্ষীপুর, দামুকদিয়া, শিতালী, দল্লিপুরসহ ১০-১৫টি গ্রামের বাসিন্দারা উপজেলা শহরে ও বিভিন্ন হাট বাজারে পণ্য নিয়ে যাতায়াত করে। গত তিন বছর হলো সীমান্ত বাজার এলাকার এ কালভার্টটি ভেঙে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হচ্ছে। প্রতিনিয়ত মানুষসহ গবাদি পশু এ কালভার্টটি দিয়ে পারাপারের সময় নিচে পরে আহত হয়। অথচ কর্তৃপক্ষের নজরেই আসে না এটা মেরামত করে চলাচলের উপযোগী করার।

শৈলকুপা-মাধবপুর সড়কের পাশের বাসিন্দা নিশান শেখ জানান, মহিষের গাড়ি নিয়ে মাঠে যাতায়াত কালে এক অংশ ভাঙা কালভার্ট পার হওয়ার সময় কয়েকদিন তার হালের মহিষ নিচে পরে আহত হয়। এ ছাড়া রাতে অচেনা পথচারীরা এ কালভার্টে পরে আহত হয় প্রতিদিন । সড়কের পাশের অপর বাসিন্দা দামুকদিয়া গ্রামের আবুল কালাম জানান, কয়েক বছর সীমান্ত বাজার এলাকার সড়কের কালভার্টটি ভেঙে পরে থাকলেও কর্তৃপক্ষ মেরামত না করায় এলাকাবাসীরা বাঁশ ও কাঠ দিয়ে কালভার্টের ভাঙা অংশ মেরামত করে ভ্যান ও ছোট যানবাহন চলাচলের উপযোগী করেন বলে জানান।

এলজিইডির শৈলকুপা উপজেলা প্রকৌশলী রওশন হাবিবের সাথে ভাঙা কালভার্টটি নিয়ে কথা হলে তিনি জানান, কয়েকটি কালভার্ট মেরামতের তালিকা পাঠানো হয়েছে, হয়তো তার মধ্যে শৈলকুপা-মাধবপুর সড়কের কালভার্টটি থাকতে পারে।

সৌজন্য: আমার সংবাদ

কুশিয়ারাভিউ২৪ডটকম/১৫ জুলাই,২০২১/মাহি






এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ





















© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
themesbazar_brekingnews1*5k