১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২৫শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি



দিনের ক্লান্তি এড়াতে যে ৬ খাবার

কুশিয়ারা ভিউ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২১

ক্লান্তি কমবেশি আমাদের সবার ভেতরেই থাকে। অনেক সময় ঘুম না পেলেও শরীর দুর্বল মনে হয় ক্লান্তি ভাব আসে। অতিরিক্ত ক্লান্তিভাবের ফলে শরীর কাহিল হয়ে পড়ে। এমন সমস্যা এড়াতে খাওয়া-দাওয়ার দিকে নজর দিতে হবে। কিছু খাবার আছে, যেগুলো ডায়েটে যুক্ত করলে ক্লান্তি ভাব থেকে মুক্তি পেতে পারেন…..

মৌসুমি ফল : ডায়েটে টাটকা মৌসুমি ফল যুক্ত করুন। পুষ্টি সরবরাহ এবং ক্লান্তির বিরুদ্ধে লড়াই করতে এসব ফল সহায়ক। কো-এনজাইম কিউ১০, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম ও আয়রনের মতো পুষ্টি উপাদান অনেক ফলের মধ্যে পাওয়া যায়, যা আপনার শরীরকে শক্তি উৎপাদন ও সংরক্ষণে সাহায্য করবে।

সবুজ শাকসবজি : পালং শাক, ব্রোকলি, লেটুসের মতো শাকসবজি ডায়েটে রাখুন। এগুলো প্রচুর ভিটামিন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে-সমৃদ্ধ।

চিয়া সিড : চিয়া সিডে স্বাস্থ্যকর চর্বি ও ফাইবার থাকে। এই ছোট্ট বীজগুলো ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড-সমৃদ্ধ, যা মস্তিষ্ক ও হৃদযন্ত্রের কার্যকারিতার জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এ ছাড়া চিয়া সিড ম্যাগনেশিয়ামের দুর্দান্ত উৎস, যা ক্লান্তি ও স্ট্রেসের মোকাবিলায় সাহায্য করে।

বাদাম : প্রচুর পুষ্টিগুণে ভরপুর বাদাম দেহের শক্তি বাড়ায়। আখরোট, আমন্ড. কাজুর মতো বাদামগুলো রুটিন যুক্ত করুন। এগুলো কেবল এনার্জি বাড়াতেই সহায়তা করে না, পাশাপাশি দীর্ঘক্ষণ পেটও ভরা রাখে।

ওটস : ওটস ফাইবারে পূর্ণ এবং প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন সরবরাহ করে। লো-ফ্যাট মিল্ক বা আমন্ড মিল্কের সঙ্গে খেতে পারেন, তবে চিনি এড়িয়ে চলাই ভালো। ওটসের সঙ্গে ফল যোগ করতে পারেন। এ খাবার দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা রাখে এবং এনার্জি সরবরাহ করে।

কলা : ক্লান্তির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য কলা অন্যতম সেরা খাবার। পটাশিয়াম, ভিটামিন ও খনিজসমৃদ্ধ কলা এনার্জির দুর্দান্ত উৎস। স্মুদি, মিল্কশেকে দিয়ে বা এমনিও খেতে পারেন।

সৌজন্য: দেশ রুপান্তর






এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ





















© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
themesbazar_brekingnews1*5k