১০ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ২৬শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২০শে রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি



বেড়েছে তেল-ডাল-চিনির দাম

কুশিয়ারা ভিউ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২২ আগস্ট, ২০২১

বাজারে তেল, ডাল ও চিনির দাম গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে প্রায় পাঁচ টাকা করে বেড়ে গেছে। এদিকে চালের দাম আগে থেকেই বাড়তি।

প্রধান প্রধান এসব পণ্যের দাম বাড়ায় অস্বস্তিতে নিম্ন-মধ্য আয়ের মানুষ। যদিও গত সপ্তাহে বাড়তি দামে বিক্রি হওয়া কাঁচামরিচের দাম কমে এখন প্রতি কেজি ৮০ টাকায় নেমেছে। এ ছাড়া স্থিতিশীল রয়েছে কিছু সবজির দাম। আমদানি বাড়ায় মাছের দাম কিছুটা কম।

রাজধানীর রামপুরা, খিলগাঁও, তালতলা ও মালিবাগ বাজার ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। এসব এলাকায় খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ১৩৮ থেকে ১৪০ টাকা। যা আগের সপ্তাহে ছিল ১৩৩ থেকে ১৩৫ টাকা। একই সঙ্গে বেড়েছে পাম তেলের দামও। ১১৮-১২০ টাকা কেজির পাম তেল এখন বিক্রি হচ্ছে ১২৩-১২৫ টাকায়।

একইভাবে চিনির দাম কেজিপ্রতি পাঁচ টাকা বেড়ে ৮০ টাকায় ঠেকেছে। আর গত সপ্তাহে ৯৫ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হওয়া মসুর ডাল এখন ১০০ থেকে ১০৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, তেল-চিনির আমদানির খরচ বেড়ে যাওয়ার অজুহাতে মিল মালিকরা দাম বাড়িয়েছেন। এই দামের লাগাম টানা দরকার। কারণ সামনের দিনগুলোতে দাম আরও বাড়তে পারে।

অন্যদিকে মিল মালিকরা বলছেন, বিশ্ববাজারে দাম বেড়েছে।

এদিকে চালের দামে লাগাম লাগেনি এখনো। খুচরা বাজারে মিনিকেট ৬২ থেকে ৬৫, আটাশ ৫০ থেকে ৫৫, স্বর্ণা ৪৭ থেকে ৫০ ও নাজিরশাইল ৬৫ থেকে ৭০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

তালতলা বাজারের একরাম হোসেন বলেন, আমরা যারা নিম্ন মধ্যবিত্ত, তারা প্রধান প্রধান খাদ্যপণ্যের দাম বাড়ায় খুবই কষ্টে আছি। এমনিতেই লকডাউন পরিস্থিতির পর হাতে টাকা-পয়সা নেই, এর মধ্যে বাজারে আসলো দামের খড়গ। বিশেষ করে চাল-তেলের দাম খুবই অস্বস্তিকর পর্যায়ে উঠেছে। তবে গেছে। খুচরা বাজারে প্রতি কেজি দেশি কাঁচামরিচের খুচরা দাম ৮০ থেকে ৯০ টাকার মধ্যে।

রামপুরা বাজারের সবুজমিয়া জানান, গতকাল রাতে কারওয়ান বাজার থেকে পাইকারিতে কাঁচামরিচ দাম ছিল ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি। এ জন্য ভারতের কাঁচামরিচ খুব একটা এখন আর আমদানি গত সপ্তাহে কাঁচামরিচে যে অস্বস্তি ছিল তাই এখন কেটে গেছে।

এদিকে বাজারে অধিকাংশ সবজি কেজিপ্রতি ৫০ থেকে ৬০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। পেঁয়াজের কেজি ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, রসুনের কেজি ৮০ থেকে ১৩০ টাকা, আদার দাম ৮০ থেকে ১০০ টাকা।

সরবরাহ বাড়ায় মালিবাগ বাজারে মাছের দাম আগের থেকে কিছুটা কম বলে জানান বিক্রেতা আবুল হোসেন। তিনি বলেন, অধিকাংশ মাছের দাম ২০ থেকে ৫০ টাকা কেজিতে কমেছে।






এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ





















© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
themesbazar_brekingnews1*5k