২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি



সিলেট ৩ আসনে তৎপর আওয়ামী লীগ মাঠে নেই বিএনপি

ছামি হায়দার,ফেঞ্চুগঞ্জ
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৩ মে, ২০২১

আসন্ন উপ-নির্বাচন সামনে রেখে সরগরম সিলেট ৩ আসন। ফেঞ্চুগঞ্জ, দক্ষিণ সুরমা ও বালাগঞ্জ নিয়ে গঠিত এই আসন। এই আসনে কে কোন দলের প্রার্থী হচ্ছেন- তা নিয়ে ভোটারদের মধ্যে নানা বিশ্লেষণ চলছে। অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের আশা করে ভোটাররা বলছেন, জনগণের চাওয়া পাওয়াকে মূল্যায়ন করবে এমন প্রার্থীই বেছে নেবেন তারা। চায়ের দোকানে এখন আলোচনার অন্যতম অনুষঙ্গ নির্বাচন।

বিভিন্ন আলোচনায় উন্নয়নের খেরো খাতা খুলে বসছেন ভোটাররা। এরই মধ্যে নিজেদের পছন্দের প্রার্থী নিয়ে সেরে নিচ্ছেন চুলচেরা বিশ্লেষণ। অনেকে বলছেন মাহমুদ উস সামাদের মতো আমরা একজন মানুষ চাই, আমাদের একমাত্র চাওয়া এলাকার সার্বিক উন্নয়ন।

এলাকাবাসী বলছে, ‘রাস্তাঘাটের উন্নয়ন কাজ এখনো বাকি রয়েছে। আমরা আশা করছি, দ্রুত এর উন্নয়ন হবে।

ইতিমধ্যে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা শুরু করেছেন দৌড়-ঝাপ। সম্ভাব্য অনেক প্রার্থী নানা রংয়ের ব্যানার পোস্টারের মাধ্যমে তাদের প্রার্থিতা জানান দিতে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ অব্যাহত রেখেছেন তারা।

সিলেট ৩ আসনের আসন্ন উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের তৎপরতা দেখা গেলেও বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীদের তৎপরতা নেই। বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন, নির্বাচনে যাওয়া না যাওয়া নির্ভর করছে দলীয় সিদ্ধান্তের ওপর। এছাড়াও একাধিক নেতা জানান সরকারের চাপেই মাঠে থাকতে পারছে না তারা এমন অভিযোগ বিএনপির। আগামী উপ- নির্বাচনে দেখেশুনে ভোট দেয়ার কথা জানান স্থানীয়রা।

ফেঞ্চুগঞ্জ,দক্ষিণ সুরমা ও বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসন।

এ আসনের সদ্য প্রয়াত সংসদ সদস্য মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরীর মৃত্যুর পর শূন্য হয়ে যাওয়া আসনে উপ-নির্বাচনে অংশ নিতে প্রার্থীদের নিয়ে ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে আলোচনা। কে হচ্ছেন এই আসনের পরবর্তী সংসদ সদস্য, এই নিয়ে এখন সাধারণ ভোটার থেকে শুরু করে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মধ্যে চলছে নানা তর্ক-বিতর্ক।

গত ১১ মার্চ সিলেট-৩ আসনের পরপর আ.লীগের দলীয় তিনবারের এমপি মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান। মৃত্যুর পর গত ১৫ মার্চ সংসদ সচিবালয়ের পক্ষ থেকে আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়

মহামারি করোনা সংকটে আটকে থাকা উপনির্বাচন অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নিতে শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। ইতোমধ্যে আগামী জুলাই মাসে সিলেট ৩ আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণের প্রস্তুতির কথা জানিয়েছে ইসি।

সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী একাধিক প্রার্থী ইতোমধ্যে মাঠে চষে বেড়াচ্ছেন। অনেকে বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের মাত্রা বাড়ানোর পাশাপাশি নির্বাচনী মাঠ দখলে তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। এছাড়াও ভোটারদের দিচ্ছেন নানা ধরনের প্রতিশ্রুতি

সিলেট ৩ আসনটি সিলেট নগরীর কাছাকাছি এলাকায় গুরত্ব অনেক বেশি। এছাড়া শিল্পনগরী ফেঞ্চুগঞ্জ ও রয়েছে এ আসনে। ফলে গুরুত্বপূর্ণ এ আসনে নির্বাচিত হয়ে দক্ষতার সঙ্গে গত ৩ বার দায়িত্ব পালন করেছেন প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। বর্তমান সরকারের আন্তরিকতা প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর দক্ষতার ফলে এই এলাকায় বিগত দিনে বেশ উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় থাকার ফলে এই আসনে ইতোমধ্যে দলীয় মনোনয়ন পেতে বেশ কয়েকজন নেতা দৌড়-ঝাপ শুরু করেছেন।

নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের ত্রান ও সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক ও সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, বিএমএ’র কেন্দ্রীয় মহাসচিব ডা. এহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু জাহিদ, প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর স্ত্রী ফারজানা সামাদ চৌধুরী, সিলেট জেলা বারের পিপি এডভোকেট নিজাম উদ্দিন, সাবেক সহকারী এর্টনী জেনারেল ও বাংলাদেশ এ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য এডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাছিত টুটুল, ফেঞ্চুগঞ্জ সরকারি  কলেজের সাবেক ভিপি সাংবাদিক শাহ মুজিবুর রহমান জকন, যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টার আওয়ামী লীগ নেতা স্যার এনাম উল ইসলাম, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক  আ.স.ম মিসবাহ।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ ছাড়াও ক্ষমতার বাইরে থাকা শক্তিশালী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপিরও বেশ কয়েকজন নেতা রয়েছেন সংসদ সদস্য হবার দৌঁড়ে। যদিও এ দলটি নির্বাচনে অংশ নেবে কিনা এই সিদ্ধান্ত নিয়ে রয়েছে অনেক জল্পনা-কল্পনা। শেষমেষ যদি দলটি নির্বাচনে অংশ নেয় তবে এ উপ-নির্বাচনে কে হচ্ছেন ধানের শীষের প্রার্থী এই নিয়ে রয়েছে দলীয় নেতাকর্মী সহ সাধারণ ভোটারদের কাছে কোটি টাকার প্রশ্ন।

এই আসনটিতে বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে এর আগে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন শফি আহমদ চৌধুরী। তিনি এবারও রয়েছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকায়। এছাড়াও দলটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এ সালাম, কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক সহ সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী ও যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেকের নামও উঠে আসছে মুখে মুখে। শেষমেষ কে পান দলীয় প্রতিক এটিই এখন দেখার বিষয়।

 

আওয়ামীলীগ বিএনপি ছাড়াও সিলেট ৩ আসনে আরও এক রাজনৈতিক শক্তি সব সময়ই থাকে আলোচনার শীর্ষে। আর তা হলো জাতীয় পার্টি। এ আসনে ইতিমধ্যে মহাজোটের প্রার্থী হতে চাইছেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ আতিকুর রহমান আতিক ও জাতীয় পার্টি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য
নজরুল ইসলাম বাবুল, সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব উসমান আলী চেয়ারম্যান। জাতীয় পার্টির নেতাদের মুখে এখন পর্যন্ত এই ৩ প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে।

এছাড়াও দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মাওলানা লোকমান আহমদ, খেলাফত মজলিস সিলেট জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা দিলওয়ার হোসাইন ও বিশিষ্ট সমাজসেবী জাহেদুর রহমান মাসুম,ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ব্যারিস্টার মোস্তাকিম রাজা চৌধুরী নির্বাচনী এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন।

নির্বাচন কমিশনের তথ্যমতে, এ আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ২২ হাজার ২৯৩ জন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ১১টি সংসদ নির্বাচনে ৬ জন নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসাবে এই আসনে দায়িত্ব পালন করেছেন। এর মধ্যে তিনবার নির্বাচিত হন আব্দুল মুকিত খান ও তিনবার মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। সর্বশেষ নবম, দশম ও একাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকা নিয়ে নির্বাচিত হন মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী।

কুশিয়ারাভিউ২৪ডটকম/২৩ মে,২০২১/ছামি

 

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ











All Bangla Newspapers



অনলাইনে বাংলাদেশের সকল পত্রিকা পড়ুন…
















© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত২০২২ কপিরাইট © কুশিয়ারা ভিউ টোয়েন্টিফোর ডটকম
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
themesbazar_brekingnews1*5k