২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি



সিলেট ৩ আসনে বইছে নির্বাচনী হাওয়া

ছামি হায়দার,ফেঞ্চুগঞ্জ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২২ মে, ২০২১

আসন্ন উপ-নির্বাচনকে সামনে রেখে সিলেট-৩ (ফেঞ্চুগঞ্জ,দক্ষিণ সুরমা,বালাগঞ্জ) আসনে বইতে শুরু করেছে নির্বাচনী হাওয়া।

এই আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য দৌড়-ঝাপ করছেন প্রায় ৩ ডজন নেতা ও পাতিনেতা।

মহামারি করোনা সংকটে আটকে থাকা উপনির্বাচন অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নিতে শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। ইতোমধ্যে আগামী জুলাই মাসে কয়েকটি উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণের প্রস্তুতির কথা জানিয়েছে ইসি। তারিখ নির্ধারণের পর এই আসনে সব দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছেন।

এই আসনের প্রয়াত সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর ইন্তেকালে শুন্য হয়ে যাওয়া পদে উপ-নির্বাচনে অংশ নিতে প্রার্থীদের নিয়ে ইতোমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে আলোচনা। কে হচ্ছেন এই আসনের পরবর্তী সংসদ সদস্য এই তর্কে চায়ের কাপে ঝড় তোলছেন সাধারণ ভোটার থেকে শুরু রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১১ মার্চ সিলেট-৩ আসনের পরপর আওয়ামী লীগের দলীয় তিন তিনবারের এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী ইন্তেকাল করেন। তার মৃত্যুর পর গত ১৫ মার্চ সংসদ সচিবালয়ের পক্ষ থেকে এ আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়।

দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসন। এ আসনের ভোটার সংখ্যা মোট ২ লাখ ৫৫ হাজার ৩০৯জন। মোট ১১ বার নির্বাচন হওয়া এই আসনে আওয়ামী লীগ ৪ বার, বিএনপি ৩ বার এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থী ৩ বার এই আসন থেকে জয়লাভ করেন।

এ আসনটি সিলেট নগরীর কাছাকাছি এলাকায় গুরত্ব অনেক বেশি। এছাড়া শিল্পনগরী ফেঞ্চুগঞ্জও রয়েছে এ আসনে। ফলে গুরুত্বপূর্ণ এ আসনে নির্বাচিত হয়ে দক্ষতার সঙ্গে গত ৩ বার দায়িত্ব পালন করেছেন প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। বর্তমান সরকারের আন্তরিকতা প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর দক্ষতার ফলে এই এলাকায় বিগত দিনে বেশ উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় থাকার ফলে এই আসনে ইতোমধ্যে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী বেশ কয়েকজন নেতার নাম উঠে আসছে।

এ আসনে নিজেদের জয়ের পাল্লা ভারী হওয়ায় এবং সবশেষ নির্বাচনেও নিজেদের দখলে থাকায় অনেকটা নির্ভার আওয়ামী লীগ। জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী তারা। মনোনয়ন প্রত্যাশীরা এখন দলীয় হাইকমান্ডের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষার পাশাপাশি এলাকায় গণসংযোগ করছেন।
কেউ কেউ নির্বাচনী মাঠ দখলে তৃণমুল নেতাকর্মীদের সাথে করছেন মতবিনিময়।

এদিকে সিলেট -৩ আসন এলাকার রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যে বিভিন্ন দলের মনোনয়ন চেষ্টার দৌড়ে কোন ঘাটতি নেই।

বিভিন্ন দলের নেতারা নিজ নিজ দলের মনোনয়ন চান এটা জানান দিতে বিভিন্ন কৌশল নিয়ে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।

যত দিন যাচ্ছে নির্বাচনের মনোনয়ন প্রার্থীর সংখ্যাও বাড়ছে। বিভিন্ন দলের একাধিক মনোনয়ন প্রার্থী এখন পরোক্ষ নির্বাচনী প্রচারনায় ব্যস্ত। প্রত্যেক প্রার্থীই জনগনের সাথে কোন না কোন ভাবে যোগাযোগ করছেন। তাদের মনোয়ন চেয়ে যেসব ব্যানার-ফেস্টুন লাগানো হয়েছে তাতে তাদের সমর্থকরা দাবি করেছেন; অমুক নেতা সমাজসেবায় অতুলনীয়, কেউবা আবার সাংস্কৃতিক অঙ্গণে খুবই জনপ্রিয়তার দাবি করছেন। আবার কোন কোন নেতা রাজনীতির ময়দানের পরীক্ষিত ও ত্যাগী নেতা বলে দাবি করছেন।

নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন,যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের ত্রান ও সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক ও সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর স্ত্রী ফারজানা সামাদ চৌধুরী, ডাকসুর সাবেক সদস্য মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট দেওয়ান গৌস সুলতান, আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, বিএমএ’র কেন্দ্রীয় মহাসচিব ডা. এহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু জাহিদ, সিলেট জেলা বারের পিপি এডভোকেট নিজাম উদ্দিন, সাবেক সহকারী এর্টনী জেনারেল ও বাংলাদেশ এ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য এডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাছিত টুটুল, ফেঞ্চুগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি সাংবাদিক শাহ মুজিবুর রহমান জকন, যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টার আওয়ামী লীগ নেতা স্যার এনাম উল ইসলাম, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক আ.স.ম মিসবাহ।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ ছাড়াও ক্ষমতার বাইরে থাকা শক্তিশালী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপিরও বেশ কয়েকজন নেতা রয়েছেন সংসদ সদস্য হবার দৌঁড়ে। যদিও এ দলটি নির্বাচনে অংশ নেবে কিনা এই সিদ্ধান্ত নিয়ে রয়েছে অনেক জল্পনা-কল্পনা। শেষমেষ যদি দলটি নির্বাচনে অংশ নেয় তবে এ উপ-নির্বাচনে কে হচ্ছেন ধানের শীষের প্রার্থী এই নিয়ে রয়েছে দলীয় নেতাকর্মী সহ সাধারণ ভোটারদের কাছে কোটি টাকার প্রশ্ন।

এই আসনটিতে বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে এর আগে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন শফি আহমদ চৌধুরী। তিনি এবারও রয়েছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকায়। এছাড়াও দলটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এ সালাম, কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক সহ সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী ও যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেকের নামও উঠে আসছে মুখে মুখে। শেষমেষ কে পান দলীয় প্রতিক এটিই এখন দেখার বিষয়।

আওয়ামীলীগ বিএনপি ছাড়াও সিলেট ৩ আসনে আরও এক রাজনৈতিক শক্তি সব সময়ই থাকে আলোচনার শীর্ষে। আর তা হলো জাতীয় পার্টি। এ আসনে ইতিমধ্যে মহাজোটের প্রার্থী হতে চাইছেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ আতিকুর রহমান আতিক ও জাতীয় পার্টি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুল, সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব উসমান আলী চেয়ারম্যান। জাতীয় পার্টির নেতাদের মুখে এখন পর্যন্ত এই ৩ প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে

এছাড়াও দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মাওলানা লোকমান আহমদ, খেলাফত মজলিস সিলেট জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা দিলওয়ার হোসাইন ও বিশিষ্ট সমাজসেবী জাহেদুর রহমান মাসুম,এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ব্যারিস্টার মোস্তাকিম রাজা চৌধুরী নির্বাচনী এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন।

সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচন জুলাইয়ে অনুষ্ঠিত হবে। করোনাকাল বিবেচনায় উপ-নির্বাচনের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছিল। গত বুধবার অনুষ্ঠিত নির্বাচন কমিশনের ৭৯তম বৈঠক শেষে ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

আগামী ২৪ মে নির্বাচনের তফসিলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে বলেও জানান তিনি। এদিকে,একইসময় লক্ষ্মীপুর-২, ঢাকা-১৪ ও কুমিল্লা-৫ আসনেও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

কুশিয়ারাভিউ২৪ডটকম/২২ মে,২০২১/ছামি

 






এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ





















© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
themesbazar_brekingnews1*5k