৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১২ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি



সিলেট-৩ উপ-নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে প্রস্তুত প্রশাসন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
প্রতীকী ছবি

মাত্র কয়েক ঘণ্টা বাকি। শনিবার সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে চলবে সিলেট ৩ (দক্ষিণ সুরমা,ফেঞ্চুগঞ্জ, বালাগঞ্জ ) আসনে ভোট গ্রহণ। ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে ভোট গ্রহণের সব প্রস্তুতি।

এবার প্রথমবারের মতো এ আসনের ভোটাররা ইভিএমের মাধ্যমে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন।

ইলেকশন কমিশনের (ইসি) নির্দেশনা অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বন্ধ হয়েছে প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারণা। এদিকে অবাধ-সুষ্ঠু উপ-নির্বাচন করতে বদ্ধপরিকর সিলেটের প্রশাসন।

জানাগেছে গতকাল রাত থেকে মাঠে নেমেছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। ভোটের পর রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন তারা।

নির্বাচন কর্মকর্তা ফয়সল কাদের জানান, দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ- এই ৩ উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসনের নির্বাচনকালীন সময়ে সকল অনিয়ম প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে বিচারবিভাগীয় কর্মকর্তাগণের সমন্বয়ে ২ সদস্যবিশিষ্টি একটি ‘নির্বাচনী তদন্ত কমিটি’ গঠন করেছে নির্বাচন কমিশন।

কমিটিতে রয়েছেন সিলেটের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ তাসলিমা শারমিন ও সিনিয়র সহকারী জজ নির্জন কুমার মিত্র।

এছাড়া আসনটির ভোটগ্রহণ উপলক্ষে ৩ জন ম্যাজিস্ট্রেটও নিয়োগ দিয়েছে ইসি। এর মধ্যে সিলেটের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাহবুবুর রজমান ভূঁঞাকে দক্ষিণ সুরমা উপজেলায়, অঞ্জন কান্তি দাসকে বালাগঞ্জ উপজেলায় এবং সিলেটের মেট্রোপলিট্রন ম্যাজিস্ট্রেট মো. সুমন ভূঁইয়াকে ফেঞ্জুগঞ্জ উপজেলায় দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তাঁরা নির্বাচনের আগে দুইদিন, পরে দুইদিন ও নির্বাচনের দিন- অর্থাৎ ২ থেকে ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মোট পাঁচদিন নির্বাচনী মাঠে দায়িত্ব পালন করবেন।

তিনি আরও জানান, ভোটগ্রহণের দিন কড়া নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলা।

৪ সেপ্টেম্বর সাধারণ ভোটকেন্দ্রে থাকবে পুলিশ, আনসার ও গ্রাম পুলিশের ১৭ থেকে ১৮ জন সদস্য। আর ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে নিয়োজিত থাকবে ১৮ থেকে ১৯ জন সদস্য। এদের মধ্যে পুলিশ আর অঙ্গিভূত আনসার সদস্যের কাছে অস্ত্র থাকবে। তারা সার্বক্ষণিক ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তা দেবেন।

তিনি আরো বলেন, পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসারের সমন্বয়ে গঠিত মোবাইল ফোর্স ২১টি, স্ট্রাইকিং ফোর্স ১২টি, র‌্যাবের ১২টি টিম ও ১২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকবে ২ থেকে ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

বিজিবির সঙ্গে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা মোকাবিলায়। ভোটগ্রহণের দিন নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালন নিশ্চিতকরণ ও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়োজিত রাখা হবে ২১ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। অন্যদিকে রিটার্নিং অফিসার ও প্রিজাইডিং অফিসারের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রের অভ্যন্তরে কিংবা ভোট গণনা কক্ষের শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে দায়িত্ব পালন করবেন তারা।

 

সিলেট ৩ আসনের উপ-নির্বাচন নিয়ে সিলেটের জেলা প্রশাসক ও নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা কাজী এমদাদুল ইসলাম বলেন, সিলেট-৩ আসনের উপ নির্বাচনে প্রতিটি ইউনিয়নের একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। এবং জেলার তিনটি উপজেলা নিয়ে সিলেট-৩ আসন। আমরা প্রতিটি উপজেলায় একজন করে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে দায়িত্ব দিয়েছি। তারা নির্বাচনের দিন দায়িত্ব পালন করবেন।

তিনি আরও বলেন, ইতোমধ্যে নির্বাচনী সরঞ্জাম এসে পৌঁছেছে। ইতোমধ্যে আমরা সভা করেছি। এই নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাই কাজ করবে। আমাদের মধ্যে সমন্বয় রয়েছে।
উল্লেখ্য, সিলেটের দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসন। যার সংসদীয় নং ২৩১। আসনটিতে মোট ভোটার ৩ লাখ ৫২ হাজার ও ভোটকেন্দ্র ১৪৯টি।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে চলতি বছরের ১১ মার্চ সিলেট-৩ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর মৃত্যু হয়। এরপর ১৫ মার্চ আসনটি শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

গেল ২৮ জুলাই এ আসনে উপনির্বাচনে ভোট গ্রহণের কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে ভোট গ্রহণ স্থগিত করেন হাইকোর্ট। এরপর এক দফা পিছিয়ে আগামী ৪ সেপ্টেম্বর ভোট গ্রহণের তারিখ ধার্য করে নির্বাচন কমিশন।

এ আসনের উপ-নির্বাচনে চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন-হাবিবুর রহমান (নৌকা), আতিকুর রহমান (লাঙ্গল), শফি আহমদ চৌধুরী (মোটরগাড়ি) ও জুনায়েদ মুহাম্মদ মিয়া (ডাব)।






এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ





















© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
themesbazar_brekingnews1*5k